fbpx
সারাদেশ

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলা আ’লীগের কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টারঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন নিয়ে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নব গঠিত কমিটিতে ত্যাগী নেতা কর্মীদের বাদ দিয়ে কমিটিতে জামাত শিবিরসহ বিএনপি পন্থিদের পদায়ন করার অভিযোগ উঠেছে।

গত ২০১৯ সালের ২৯ নভেম্বর রাঙ্গাবালী উপজেলা আওয়ামী সম্মেলনে অধ্যক্ষ মো.দেলোয়ার হোসেন সভাপতি ও আলহাজ¦ সাইদুজ্জামান মামুন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। অজ্ঞাত কারণে দেড় বছর পর গত ৩০ জুন জেলা কমিটি ৭১ সদস্যের কার্যনির্বাহী কমিটি অনুমোদন দেন।

কমিটি প্রকাশ পাওয়ার পরপরই সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমলোচনার ঝড় উঠে। ইতিমধ্যে প্রকাশিত কমিটির বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে কেন্দ্রীয় ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে পদবঞ্চিত নেতারা।

আরও পড়ুন-খুলনা মাথাভাঙ্গায় বন্ধুদের সঙ্গে গোসলে নেমে প্রাণ গেল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকের

আরও পড়ুন-ডুমুরিয়ায় কঠোর লকডাউন বাস্তবায়ন করতে ওসি মোঃ ওয়াইদুর রহমানের তৎপরতা

পটুয়াখালীর সর্ব দক্ষিণে দ্বীপ উপজেলা খ্যাত রাঙ্গাবালী উপজেলা ৬টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। অভিযোগ উঠেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের পুনঙ্গ কমিটি গঠনের তৃর্ণমূলের নেতাকর্মীদের মতামত নেয়া হয়নি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আওয়ামী লীগের একজন সিনিয়র নেতা জানান, শুধু অর্থ ও আত্মিয়তার কারণে উপজেলা আ’লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ মো.দেলোয়ার হোসেন তার পরিবারে ৬জনকে উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটিতে স্থান দিয়েছে।

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলা আ'লীগের কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ
source: দক্ষিণবঙ্গ ডেক্স

সবুজ ছায়া নামের একটি ডেভলেপর সংস্থা পরিচালক মো.ফরহাদ হোসেন (হোসাইন ফরহাদ) কে সাংগঠনিক সম্পাদক, দায়িত্বশীল ও সিনিয়ন লোকজন থাকা সত্তে¦ও বহিরাগত জেলা যুবদল নেতা গাজী ওমর ফারুক (সাবু)কে সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, চর মোন্তাজ ছাত্রলীগের সভাপতি রাশেল খানকে সদস্য, সভাপতির নিকট আত্মীয় ইতালী প্রবাসী আকতারুল আলম ফয়েজকে সদস্য করা হয়েছে।

বড় বাইশদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওমর ফারুক ক্ষোভের সাথে বলেন, আমাদের ইউনিয়ন থেকে মো.ফরহাদ হোসেন নামে একজন সাংগঠনিক সম্পাদক নেয়া হয়েছে ওই ছেলে বাবা মো.হানিফ সর্দার বর্তমান ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি।

তার আরেক চাচা এ্যাড. মো.দেলোয়ার হোসেন জামায়াতে ইসলামীর নেতা। সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক মো.জাফর মাস্টার বলেন, আমি দীর্ঘদিন যাবত ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামীলীগীর সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসলেও আমাকে কোন কারণ ছাড়াই বর্তমান কমিটিতে রাখা হয়নি।

এ ব্যপারে সবুজ ছায়া ডেভলেপর সংস্থা পরিচালক মো.ফরহাদ হোসেন জানান, আমি ২০০৬ সালে থেকে জগ্নন্নাথ কলেজ ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলাম।

২০১৪ সাল থেকে রাঙ্গাবালী উপজেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনী রাজনীতির কারণে প্রতিপক্ষরা মনগড়া অভিযোগ তুলছে।

রাঙ্গাবালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক মো.দেলোয়ার হোসেন বলেন, কমিটি করার ক্ষেত্রে ভুলত্রæটি হতেই পারে। চেষ্টা করেছি নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে কমিটি করতে। ২/১জনতো কাঙ্খিত পদ না পেয়ে অভিযোগ তুলতে পারে। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী আলোমগীর বলেন, আমি এখোন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাইনি।

ফেসবুকে সর্বশেষ নিউজ পেতে এড হোন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে দক্ষিণবঙ্গ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button